1. atikur.bdco@gmail.com : admin :
"শেষ স্টেশন" নিপুন নগরী - www.atikurbd.com
ঘোষণা :
লেখা আহবান শিক্ষা গুরু, রবিউল ইসলাম মরহুমা ফজিলাতুন্নেছা জোহার প্রতি গভীর শ্রদ্ধাঞ্জলি খেলার সাথী, রবিউল ইসলাম পদ্মা_সেতু,যা আপনার জানা উচিত স্মৃতির পাতায় একজন আবদুল গাফফার চৌধুরী শেখ হাসিনার দিল্লী নির্বাসনঃ কেমন ছিল দিনগুলো? বিপর্যস্ত চাষী, রবিউল ইসলাম আজ ১৭ মে বঙ্গবন্ধুকন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার ঐতিহাসিক স্বদেশ প্রত্যাবর্তন প্রকৃতির প্রেম – রবিউল ইসলাম স্মৃতিতে ৭১-এর ১৭ই এপ্রিল ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস রবিউল ইসলাম স্মৃতি বড় মধুর আজ ২৬শে মার্চ মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস। ঘাতক জননী, রবিউল ইসলাম রবিউল ইসলামের কবিতা বাল্যবন্ধু রবিউল ইসলামের কবিতা,শোক সংবাদ রবিউল ইসলামের কবিতা পরিত্যক্ত বিশ্ববাসীকে মুক্তিযুদ্ধের প্রকৃত তথ্য জানাতে বিশ্ব সফর করেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী শ্রীমতি ইন্দিরা গান্ধী রবিউল ইসলামের কবিতা, নারী রবিউল ইসলামের কবিতা, মহাজন পুর নির্ঘুম শহর– দালান জাহান তুমি শোক নও,শক্তি How to create a profilebacklink হে জ্যোতির্ময় ১১ আগষ্ট থেকে চালু হচ্ছে হাইকোর্ট বিভাগের সকল বেঞ্চ ৮-১২ই আগষ্ট পর্যন্ত বিচারকাজ পরিচালনায় হাইকোর্ট বিভাগে ১২ টি বেঞ্চ গঠন রবিবার থেকে চালু হচ্ছে আপীল বিভাগের বিচারিক কার্যক্রম মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে খোলা চিঠি হাইকোর্টে নতুন আরও ৯ বেঞ্চ গঠন একজন বিচক্ষণ বাদশার গল্প সিপিবি’র প্রাথমিক বাজেট প্রতিক্রিয়া অর্থ আয়ের পথ সহজ করল ইউটিউব! করোনায় ৪০ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ১৬৭৫ ২৪ ঘণ্টায় ২৮ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ১৩৫৪ ৩৫ ভার্চুয়াল ও ১৮ রেগুলার বেঞ্চ চেয়ে প্রধান বিচারপতিকে স্মারকলিপি ২৪ ঘণ্টায় ২৫ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ৩৬৩ আজ মৃত্যু ৩৩ পরীক্ষা ১৪১৮৪ শনাক্ত ১২৩০ সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে আপাতত গাছ কাটা নিষিদ্ধ করেছে হাইকোর্ট আদালতের ইংরেজি রায় বাংলা করবে ‘আমার ভাষা’ সফটওয়্যার জেনে নিন বাংলায় ব্যবহৃত ১২৮টি যুক্তবর্ণ দেওয়ানি আদালতের আর্থিক বিচারিক এখতিয়ার বৃদ্ধির গেজেট প্রকাশ জেল-জরিমানার বিধান রেখে খাসজমি উদ্ধারে আসছে নতুন আইন রায়ে আমৃত্যু উল্লেখ না করলে যাবজ্জীবন ৩০ বছর বাংলার বাঘ শের ই বাংলা শীতে বিচারপতি-আইনজীবীদের পরতে হবে কালো কোট আমেরিকার নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের কিছু তথ্যঃ- আওয়ামী যুবলীগ এর ৪৮তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী ৩ রা নভেম্বর বাঙালী জাতির ইতিহাসে এক বেদনাবিধুর দিন আইন, বিবেক, নীতির বাতিঘর ও জাতীয় ঐক্যের প্রতিক হিসাবে সকলের প্রিয়জন ব্যারিষ্টার রফিক-উল হক অধস্তন আদালতে অবকাশকালীন ছুটি কমলো ব্যারিস্টার রফিক-উল হক আর নেই তালিকাভুক্তির দাবিতে প্রেস ক্লাবে শিক্ষানবিশ আইনজীবীদের আমরণ অনশন ডিসেম্বরে সুপ্রিম কোর্টের অবকাশকালীন ছুটি বহাল বন্ধ হোক বিচারহীনতা এবং ধর্ষন গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর সুস্থতার হার ৭৭ শতাংশ ছাড়িয়েছে অ্যাটর্নি জেনারেল হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির বর্তমান সভাপতি ও জ্যেষ্ঠ আইনজীবী অ্যাডভোকেট আবু মোহাম্মদ (এএম) আমিন উদ্দিন অ্যাটর্নি জেনারেল অ্যাডভোকেট মাহবুবে আলম আর আমাদের মাঝে নেই ১৬ বছর কারাভোগের পর ফাঁসির আসামি খালাস বার কাউন্সিলে অ্যাডভোকেট তালিকাভুক্তির লিখিত পরীক্ষা স্থগিত অ্যাটর্নি জেনারেলের অবস্থার অবনতি, নেয়া হয়েছে আইসিউতে জামিন সংক্রান্ত বিষয়ে বিচারিক আদালতকে হাইকোর্টের চার নির্দেশনা ২৬ সেপ্টেম্বরই হচ্ছে বার কাউন্সিলের লিখিত পরীক্ষা অ্যাটর্নি জেনারেল করোনা আক্রান্ত, সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে ভর্তি “উন্নয়নের রোলমডেল শেখ হাসিনা” আপিল বিভাগে নিয়োগ পেলেন দুই বিচারপতি করোনায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৪৩১৬ সোমবার থেকে শ্রম ভবনে লাগাতার অবস্থান কর্মসূচি ঘোষণা আন্দোলনরত ড্রাগন গ্রুপের শ্রমিকদের আদালত সুপ্রিম কোর্ট বারে তলবি সভার আহ্বানে ৩১ আইনজীবীর আবেদন চিরঞ্জীব বঙ্গবন্ধু করোনায় ২৪ ঘন্টায় আরো ৪১ জনের মৃত্যু এবং নতুন শনাক্ত আরো ৩৮২২ সুপ্রিম কোর্টের সব অবকাশকালীন ছুটি বাতিল জেনে নিন ১০(দশ)টি শ্রম আদালতের অধিক্ষেত্র আগামীকাল কমরেড জ্ঞান চক্রবর্তীর ৪৩তম মৃত্যুবার্ষিকী ভার্চ্যুয়াল পদ্ধতিতে সপ্তাহে ৩ দিন চলবে চেম্বার আদালত করোনায় আরও ৩৪ জনের জনের মৃত্যু কোর্টের ভেতর সামাজিক দূরত্ব মানলেও সেকশনে হুড়োহুড়ি খুলনায় পাটকল শ্রমিকদের আন্দোলন কর্মসূচিতে সিপিবি’র সংহতি ও একাত্মতা প্রকাশ জামিন-স্থগিতাদেশের কার্যকারিতার মেয়াদ বাড়লো ৩ দফা দাবিতে শিক্ষানবিশ আইনজীবীদের সমাবেশ আগামী ২৩ আগষ্ট মাস্ক পরতে বাধ্য করা এবং সচেতনতা বাড়াতে মোবাইল কোর্ট বিকাশ দিয়ে উবারে পেমেন্ট সুবিধা চালু উচ্চ আদালতে করোনাকালীন ড্রেস কোড নির্ধারণ বার কাউন্সিলে লিখিত পরীক্ষা চেয়ে রিটের আদেশ আগামী সপ্তাহে উচ্চ আদালতে মামলা পরিচালনায় সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশনা আগামী বুধবার থেকে খুলছে সুপ্রিম কোর্ট, ৩৫ টি ভার্চুয়াল এবং ১৮ টি রেগুলার বেঞ্চ গঠন করোনায় আরো ৩৯ জনের মৃত্যু সাবমেরিন ক্যাবলের সংযোগ বিচ্ছিন্ন, ইন্টারনেটে ধীরগতি দুর্নীতি অভিযোগ পেলে কঠোর ব্যবস্থা,বেঞ্চ অফিসারদের বদলির সিন্ধান্ত শ্রমিক নেতা খাইরুল মামুন মিন্টুর ৪০ তম জন্মদিন আজ কেউ কথা রাখেনি – সুনীল গঙ্গোপাধ্যায় দেশে করোনায় ৩৩৩৩ জনের মৃত্যু নিয়মিত আদালতের পাশাপাশি ভার্চুয়াল মাধ্যমেও চলবে দেশের সর্বোচ্চ আদালত সুপ্রিম কোর্ট করোনায় ২৪ ঘন্টায় আরো ৩৯ জনের মৃত্যু করোনায় ২৪ ঘন্টায় আরো ৩৩ জনের মৃত্যু ফুলকোর্ট সভা বৃহস্পতিবার: সুপ্রিম কোর্টের স্বাভাবিক বিচারকার্যক্রম প্রসঙ্গ করোনায় ২৪ ঘন্টায় আরো ৫০ জনের মৃত্যু জাহিদ হাসান ঈদ স্মৃতি — জাহিদ হাসান করোনাভাইরাসে গত ২৪ ঘণ্টায় ৩০ জনের মৃত্যু বন্যা পরিস্থিতিতে সিপিবির গভীর উদ্বেগ সরকারের যথাযথ উদ্যোগের অভাবে হাহাকার বাড়ছে
শিরোনাম :
লেখা আহবান শিক্ষা গুরু, রবিউল ইসলাম মরহুমা ফজিলাতুন্নেছা জোহার প্রতি গভীর শ্রদ্ধাঞ্জলি খেলার সাথী, রবিউল ইসলাম পদ্মা_সেতু,যা আপনার জানা উচিত স্মৃতির পাতায় একজন আবদুল গাফফার চৌধুরী শেখ হাসিনার দিল্লী নির্বাসনঃ কেমন ছিল দিনগুলো? বিপর্যস্ত চাষী, রবিউল ইসলাম আজ ১৭ মে বঙ্গবন্ধুকন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার ঐতিহাসিক স্বদেশ প্রত্যাবর্তন প্রকৃতির প্রেম – রবিউল ইসলাম স্মৃতিতে ৭১-এর ১৭ই এপ্রিল ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস রবিউল ইসলাম স্মৃতি বড় মধুর আজ ২৬শে মার্চ মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস। ঘাতক জননী, রবিউল ইসলাম রবিউল ইসলামের কবিতা বাল্যবন্ধু রবিউল ইসলামের কবিতা,শোক সংবাদ রবিউল ইসলামের কবিতা পরিত্যক্ত বিশ্ববাসীকে মুক্তিযুদ্ধের প্রকৃত তথ্য জানাতে বিশ্ব সফর করেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী শ্রীমতি ইন্দিরা গান্ধী রবিউল ইসলামের কবিতা, নারী রবিউল ইসলামের কবিতা, মহাজন পুর নির্ঘুম শহর– দালান জাহান তুমি শোক নও,শক্তি How to create a profilebacklink হে জ্যোতির্ময় ১১ আগষ্ট থেকে চালু হচ্ছে হাইকোর্ট বিভাগের সকল বেঞ্চ ৮-১২ই আগষ্ট পর্যন্ত বিচারকাজ পরিচালনায় হাইকোর্ট বিভাগে ১২ টি বেঞ্চ গঠন রবিবার থেকে চালু হচ্ছে আপীল বিভাগের বিচারিক কার্যক্রম মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে খোলা চিঠি হাইকোর্টে নতুন আরও ৯ বেঞ্চ গঠন একজন বিচক্ষণ বাদশার গল্প সিপিবি’র প্রাথমিক বাজেট প্রতিক্রিয়া অর্থ আয়ের পথ সহজ করল ইউটিউব! করোনায় ৪০ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ১৬৭৫ ২৪ ঘণ্টায় ২৮ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ১৩৫৪ ৩৫ ভার্চুয়াল ও ১৮ রেগুলার বেঞ্চ চেয়ে প্রধান বিচারপতিকে স্মারকলিপি ২৪ ঘণ্টায় ২৫ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ৩৬৩ আজ মৃত্যু ৩৩ পরীক্ষা ১৪১৮৪ শনাক্ত ১২৩০ সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে আপাতত গাছ কাটা নিষিদ্ধ করেছে হাইকোর্ট আদালতের ইংরেজি রায় বাংলা করবে ‘আমার ভাষা’ সফটওয়্যার জেনে নিন বাংলায় ব্যবহৃত ১২৮টি যুক্তবর্ণ দেওয়ানি আদালতের আর্থিক বিচারিক এখতিয়ার বৃদ্ধির গেজেট প্রকাশ জেল-জরিমানার বিধান রেখে খাসজমি উদ্ধারে আসছে নতুন আইন রায়ে আমৃত্যু উল্লেখ না করলে যাবজ্জীবন ৩০ বছর বাংলার বাঘ শের ই বাংলা শীতে বিচারপতি-আইনজীবীদের পরতে হবে কালো কোট আমেরিকার নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের কিছু তথ্যঃ- আওয়ামী যুবলীগ এর ৪৮তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী ৩ রা নভেম্বর বাঙালী জাতির ইতিহাসে এক বেদনাবিধুর দিন আইন, বিবেক, নীতির বাতিঘর ও জাতীয় ঐক্যের প্রতিক হিসাবে সকলের প্রিয়জন ব্যারিষ্টার রফিক-উল হক অধস্তন আদালতে অবকাশকালীন ছুটি কমলো ব্যারিস্টার রফিক-উল হক আর নেই তালিকাভুক্তির দাবিতে প্রেস ক্লাবে শিক্ষানবিশ আইনজীবীদের আমরণ অনশন ডিসেম্বরে সুপ্রিম কোর্টের অবকাশকালীন ছুটি বহাল বন্ধ হোক বিচারহীনতা এবং ধর্ষন গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর সুস্থতার হার ৭৭ শতাংশ ছাড়িয়েছে অ্যাটর্নি জেনারেল হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির বর্তমান সভাপতি ও জ্যেষ্ঠ আইনজীবী অ্যাডভোকেট আবু মোহাম্মদ (এএম) আমিন উদ্দিন অ্যাটর্নি জেনারেল অ্যাডভোকেট মাহবুবে আলম আর আমাদের মাঝে নেই ১৬ বছর কারাভোগের পর ফাঁসির আসামি খালাস বার কাউন্সিলে অ্যাডভোকেট তালিকাভুক্তির লিখিত পরীক্ষা স্থগিত অ্যাটর্নি জেনারেলের অবস্থার অবনতি, নেয়া হয়েছে আইসিউতে জামিন সংক্রান্ত বিষয়ে বিচারিক আদালতকে হাইকোর্টের চার নির্দেশনা ২৬ সেপ্টেম্বরই হচ্ছে বার কাউন্সিলের লিখিত পরীক্ষা অ্যাটর্নি জেনারেল করোনা আক্রান্ত, সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে ভর্তি “উন্নয়নের রোলমডেল শেখ হাসিনা” আপিল বিভাগে নিয়োগ পেলেন দুই বিচারপতি করোনায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৪৩১৬ সোমবার থেকে শ্রম ভবনে লাগাতার অবস্থান কর্মসূচি ঘোষণা আন্দোলনরত ড্রাগন গ্রুপের শ্রমিকদের আদালত সুপ্রিম কোর্ট বারে তলবি সভার আহ্বানে ৩১ আইনজীবীর আবেদন চিরঞ্জীব বঙ্গবন্ধু করোনায় ২৪ ঘন্টায় আরো ৪১ জনের মৃত্যু এবং নতুন শনাক্ত আরো ৩৮২২ সুপ্রিম কোর্টের সব অবকাশকালীন ছুটি বাতিল জেনে নিন ১০(দশ)টি শ্রম আদালতের অধিক্ষেত্র আগামীকাল কমরেড জ্ঞান চক্রবর্তীর ৪৩তম মৃত্যুবার্ষিকী ভার্চ্যুয়াল পদ্ধতিতে সপ্তাহে ৩ দিন চলবে চেম্বার আদালত করোনায় আরও ৩৪ জনের জনের মৃত্যু কোর্টের ভেতর সামাজিক দূরত্ব মানলেও সেকশনে হুড়োহুড়ি খুলনায় পাটকল শ্রমিকদের আন্দোলন কর্মসূচিতে সিপিবি’র সংহতি ও একাত্মতা প্রকাশ জামিন-স্থগিতাদেশের কার্যকারিতার মেয়াদ বাড়লো ৩ দফা দাবিতে শিক্ষানবিশ আইনজীবীদের সমাবেশ আগামী ২৩ আগষ্ট মাস্ক পরতে বাধ্য করা এবং সচেতনতা বাড়াতে মোবাইল কোর্ট বিকাশ দিয়ে উবারে পেমেন্ট সুবিধা চালু উচ্চ আদালতে করোনাকালীন ড্রেস কোড নির্ধারণ বার কাউন্সিলে লিখিত পরীক্ষা চেয়ে রিটের আদেশ আগামী সপ্তাহে উচ্চ আদালতে মামলা পরিচালনায় সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশনা আগামী বুধবার থেকে খুলছে সুপ্রিম কোর্ট, ৩৫ টি ভার্চুয়াল এবং ১৮ টি রেগুলার বেঞ্চ গঠন করোনায় আরো ৩৯ জনের মৃত্যু সাবমেরিন ক্যাবলের সংযোগ বিচ্ছিন্ন, ইন্টারনেটে ধীরগতি দুর্নীতি অভিযোগ পেলে কঠোর ব্যবস্থা,বেঞ্চ অফিসারদের বদলির সিন্ধান্ত শ্রমিক নেতা খাইরুল মামুন মিন্টুর ৪০ তম জন্মদিন আজ কেউ কথা রাখেনি – সুনীল গঙ্গোপাধ্যায় দেশে করোনায় ৩৩৩৩ জনের মৃত্যু নিয়মিত আদালতের পাশাপাশি ভার্চুয়াল মাধ্যমেও চলবে দেশের সর্বোচ্চ আদালত সুপ্রিম কোর্ট করোনায় ২৪ ঘন্টায় আরো ৩৯ জনের মৃত্যু করোনায় ২৪ ঘন্টায় আরো ৩৩ জনের মৃত্যু ফুলকোর্ট সভা বৃহস্পতিবার: সুপ্রিম কোর্টের স্বাভাবিক বিচারকার্যক্রম প্রসঙ্গ করোনায় ২৪ ঘন্টায় আরো ৫০ জনের মৃত্যু জাহিদ হাসান ঈদ স্মৃতি — জাহিদ হাসান করোনাভাইরাসে গত ২৪ ঘণ্টায় ৩০ জনের মৃত্যু বন্যা পরিস্থিতিতে সিপিবির গভীর উদ্বেগ সরকারের যথাযথ উদ্যোগের অভাবে হাহাকার বাড়ছে

“শেষ স্টেশন” নিপুন নগরী

  • প্রকাশ : মঙ্গলবার, ২ জুন, ২০২০
  • ১১৩২ বার পড়া হয়েছে

“শেষ স্টেশন” নিপুন নগরী

                                        -‘পরাবাস্তব অনুগল্প-০১ঃ              
  ‘শেষ বলে কিছু নেই, শেষ থেকেই শুরু হয় গল্পের’
–রাতের গাঢ় আঁধার ভেঙে ছুটে চলেছে দ্রুতগামী ‘চট্রগ্রাম এক্সপ্রেস’ ট্রেন। রাতের আকাশে ঘন কালো মেঘ। বাতাসে রাতের অনাহারী চাঁদ, কলঙ্কিত করে রেখেছে  যেন নিজেকে। কুয়াশা ধোঁয়া চাঁদের লুকোচুরি খেলায় আকাশের তাঁরা গুলো ও সাথি হয়েছে। ছুটে চলছে রাতের ট্রেন সহস্রাধিক যাত্রী নিয়ে। গন্তব্য চট্রগ্রাম রেলওয়ে স্টেশন। খুব বেশি স্টেশনে থামে না ট্রেনটি। মাঝে দু’একটা জনবহুল স্টেশন ছাড়া। কিছু যাত্রী ওঠে কিছু যাত্রী নেমে যায় ট্রেন থেকে। 
ছিন্নমূল অনেক মানুষের দেখা মিলে ট্রেনটিতে। আছে প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেনীর রেলওয়ে বগি। শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত বগি আছে কিছু। তৃতীয় শ্রেনীর বগি গুলো বেশি ঘটনাবহুল আর জনসমাগম বেশি হয়। চা, সিগারেট, পান, সবি পাওয়া যায় হকারদের কাছে। গানের সূরে সূরে ভিক্ষে করে গরীব মানুষ গুলো। আর পাওয়া যায় স্বপ্নে পাওয়া সর্ব রোগের মহা ওষুধ। এক ওষুধে সকল রোগ মুক্তি। মান্নান মিয়াঁর তিতাস মলম ও পাওয়া যায়। সংবাদপত্র বিক্রি করে অনেকে। বিখ্যাত সব গল্পের বইয়ের বাঙালি সংস্করণ ও বিক্রি করে অনেক হকার।

তুলনামূলক ফাঁকা একটা প্রথম শ্রেনীর বগিতে বসে আছেন জনপ্রিয় একজন ‘আলোকচিত্র শিল্পী’ মধ্য বয়স্ক সুনীল রায়। সাথে ক্যামেরা; ফাইল রাখার ব্যাগ। নিতান্ত প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র তেমন নেই। যেমন কাপড়ের ব্যাগ। চোখে মুখে বয়সের ছাপ পড়েছে। গম্ভীর আর অল্পভাষী মনে হলো। চেহারার তুলনায়- চোখে নিস্প্রভ একটা ক্লান্তি চোখে পড়ে। হাতে মোটামুটি বলতে গেলে দামী একটা ঘড়ি। তবে পুরোনো। ক্যামেরাটা ও পুরোনো। নতুন একটা ভালো ক্যামেরা কিনবার টাকা মনে হয় নেই বেশ একটা অস্থিরতা আছে স্বভাবে। পুরোনো দিনের মানুষের মত লাগে দেখতে। কেতাদুরস্ত কোন ভাব নেই, শান্ত একটু ভাবনাগ্রস্ত মানুষ। একটু অগোছালো যেন। 
ট্রেনটি রাতের বিরতি নেয়া শেষ স্টেশনটায় থেমে আছে। একজন বৃদ্ধ পান-সিগারেটের হকার করুন সূরে বলছে পান লাগবে পান। ভালো সিগারেট আছে। চা আছে লাগবে চা। পান লাগবে পান। বলতে বলতে হোঁচট খেয়ে পড়ে গেলো একবার। সাথে সাথে কোথা থেকে দৌড়ে এসে কম বয়সি একটা ছেলে তুলে ধরলো বৃদ্ধটাকে। কিছু হইনি তো ঠিক আছেন। বৃদ্ধ বললো হুম ঠিক আছি বাবা। ছেলেটা অল্প কিছু সিগারেট আর চকলেট কিনে; ট্রেনের দরজার কাছে গিয়ে বিরস মনে সিগারেট টানতে লাগলো। ট্রেন আবার চলতে শুরু করেছে।
এতক্ষণ একমনে এসব দেখছিলেন সুনীল রায়। কিছুটা বিভ্রান্তি নিয়ে তাকিয়ে আছে এখন সিগারেট ধরানো ছেলেটার দিকে। সুনীল রায় মনে হয় সিগারেট খান না। তাই আগ্রহ নিয়ে সিগারেট খাওয়া দেখছিলেন। ট্রেনের বগির দরজায় দাড়িয়ে সিগারেট খাওয়া বেশ মজার মনে হয়।
এসব দেখতে দেখতে নিজের মনে ক্যামেরা আর নিজের কাগজপত্র গুলো গুছিয়ে নিলেন তিনি। আনমনে ট্রেনের বাইরের রাতের পরিবেশ দেখছেন সুনীল রায়। ট্রেন এখন দ্রুত গতিতে ছুটছে নিজের গন্তব্যের দিকে। জানালার বাইরে রাতের আঁধারের লুকোচুরি। বিষন্ন সময়ের স্মৃতিকথা মনে পড়ে এমন আঁধারে। সুনীল রায় কি যেন ভাবছিলেন নিজের মনে। চুপচাপ নিরিবিলি শান্ত পরিবেশ। ট্রেনের বগিটায় আলো ছায়ার খেলা। বাইরে থেকে কিছু আলো আসছে বগিতে।
এমন সময় হঠাৎ তার পাশে বসা প্রায় তার সমবয়সি একজন যাত্রী বললেন। 
গল্প শুনবেন একটা? বসেইতো আছেন একা চুপচাপ।
আমাকে বললেন।
জ্বি আপনাকেই বলেছি; এখনো কিন্তু অনেকটা পথ বাকী। 
ভালো করে লোকটাকে একবার দেখে নিলেন সুনীল রায়। প্রায় তার বয়েসি মানুষ। শান্ত আর লম্বাটে রোগাক্রান্ত চেহারা। চোখে পুরু কাচের চশমা পড়া।অনেকটা পুরোনো চশমা। চশমার লেন্স কয়েকবার বদল হলেও চশমাটা বদল হয়নি অনেক দিন। তার চোখে মুখে ও বয়সের ছাপ পড়েছে। ভাঙাচোরা একটা চেহারা।
কিছুটা ভেবে সুনীল রায় বললেন। ‘হুমম’.. গল্প বলবেন! আচ্ছা ঠিক আছে বলেন…। 
নিজেকে কিছুটা গুছিয়ে নিয়ে ধীর আর শান্ত গলায় গল্প বলা শুরু করলেন কায়সার মাহমুদ।
ঢাকায় একটা সরকারি অফিসে ছোটখাটো একটা চাকরী করি অফিস সহকারি হিসেবে। গ্রামের বাড়ি চিটাগাং। কাজের প্রয়োজনে অনেক সময় বহুদিন গ্রামের বাড়ীতে ফেরা হয়ে উঠেনা। ছোট একটা চাকরি; সরকারি হলেও অসৎ টাকা হস্তগত করি না। আর পরিশ্রমের উপার্জন ছাড়া অন্য কোন সেকেন্ড অপশন নেই আমার কাছে। একটু বেশি বয়সে বিয়ে করেছিলাম। বিয়ের অনেক দিন; অনেকগুলো বছর চলে গেলে ও আমাদের ঘরে কোন সন্তান হচ্ছিলো না। মনটা খারাপই থাকতো সবসময়। চাকরী আর বেতনের অত জোর নেই যে নিজের স্ত্রীকে ঢাকায় এনে তুলবো। ছুটিছাটা পেলে সময় করে বাড়ীতে যেতাম। এমন সময় আল্লাহ মুখ ফিরে চাইলেন।–
বলে। আনমনে ভাবলেন কিছুক্ষণ। হতাশা নাকি ক্লান্তি বোঝা গেলো না। নিজের অভাবের কথাগুলে শুনাবেন নাতো আবার। শান্ত মনে ভাবছিলেন সুনীল রায়। 
গত সাত বছর আগের কথা; সেদিন ছিলো ঝড়ের রাত। রাত বারোটার কাছাকাছি সময়। চট্রগ্রাম এক্সপ্রেসে করে বাড়ীতে যাচ্ছি। আমার প্রথম কন্যা সন্তান পৃথিবীতে আসবে। সরকারী  অফিসের ছোট একটা চাকরী করি ঢাকায় তাই; অফিসের খুব জরুরী একটা কাজ শেষ করে ঢাকা থেকে ফিরছি। আমার প্রথম কন্যা সন্তান তখন আমার স্ত্রীর গর্ভে; হাসপাতালে এ্যাডমিট করা হয়ে ছিলো। ডাক্তার নির্দিষ্ট সময় জানিয়ে দিয়েছেন বেবি হওয়ার। হাসপাতাল থেকে সবাই আমার জন্য অপেক্ষা করছে। সেদিন রাত বারোটায় মোবাইলে আমি আমার সদ্য ভুমিষ্ঠ হওয়া কন্যা সন্তানের কান্নার আওয়াজ শুনি।
কেমন এক অভূতপূর্ব অনুভূতি তা বলে বোঝাতে পারবো না আপনাকে। আনন্দে চোখে পানি চলে এসে ছিলো। 
বলে বাচ্চা ছেলেদের মত কালো সস্তা ধরনের পুরু কাঁচের পুরোনো চশমা মুছতে লাগলেন তিনি। 
‘তারপর’ আপনি কি করলেন। বললেন সুনীল রায়।
আমি হাসপাতালে আমার স্ত্রীকে বললাম, তুমি ভেবে না। আমি যতদ্রুত সম্ভব হাসপাতালে চলে আসছি। তুমি চিন্তা করো না কিছু। আমি ট্রেনে বসেই আমার মেয়ের নাম নিয়ে ভাবছি। একটা নাম মাথায় আসলো ‘রাত্রি’। আমি আমার স্ত্রীকে মোবাইল করে জানালাম আমার প্রথম কন্যা সন্তানের নাম ‘রাত্রি’ রাখলাম। সবাই খুব খুশি হলো আমার উচ্ছাস দেখে। আমার স্ত্রী রাবেয়া প্রথম সন্তান প্রসবের অক্লান্ত কষ্ট সহ্য করার পরও ক্লান্ত শরীরে হাসতে চেষ্টা করলো। আমি এতটা দূর থেকে ওর কষ্টটা উপলব্ধি করতে পারছিলাম। এমন সময় হঠাৎ…
এমন সময় হঠাৎ কি হলো। চুপ করে গেলেন যে। বলুন ভালোই তো লাগছে; লজ্জা পাওয়ার কিছু নেই। আমরা দুজনেই প্রায় সমবয়সি। বললেন সুনীল রায়।
এমন সময় হঠাৎ…আমাদের ট্রেন টি চলন্ত অবস্থায় মারাত্মক ভাবে  ঝাঁকি দিয়ে উঠলো; আমাদের চলন্ত ট্রেনটি লাইন চূত হয়ে অন্য একটি লাইনে গিয়ে উঠেছে- মনে হলো। না কি হয়েছে বুঝতে পারলাম না ঠিকমত। 
আমাদের ট্রেনের চালক পুরো দমে ট্রেনটি থামাতে চেষ্টা করছিল কেন জানি। আমার মনে হলো ভুলক্রমে রুট ফেল করেছে। কিন্তু আমরা চলন্ত ট্রেনে তার থেকেও বড় বিপদে ছিলাম। কারন রুট এলোমেলো হয়ে যাওয়ার কারনে আমাদের ট্রেনটি ঢাকাগামী আরেকটি ট্রেনের সাথে মুখিমুখি সংঘর্ষে বিধ্বস্ত হলো; ট্রেন ভেঙ্গেচুরে পতন ঘটলো অনেক মানুষ ভর্তী বগীর। বহু মানুষ মারা গেছে সেই ট্রেন দূর্ঘটনায়। পত্রিকায় সংবাদ ও হয়েছিলো, নিশ্চয়; পড়েছেন!
কি একটা হৃদয়বিদারক পরিবেশ ছিলো এক্সিডেন্টের সময়। চারিদেকে শুধু মৃত্যু আর মৃত্যু; লাশ আর লাশ। মৃত্যুর মিছিলে মানুষ সমবেত হয়েছিলো আত্ম চিৎকার দিয়ে। আর হাহাকার, কান্না, যন্ত্রণা সব কিছু ছাপিয়ে প্রিয়জন হারানো চিৎকারে আকাশ, পৃথিবী সব কিছু এক হয়ে গিয়েছিলো মুহূর্তেই। চারিপাশে শুধু মৃত্যুর কবক্ষ নিকষ কালো ছায়া। আজো তার ছায়া পড়ে চট্রগ্রাম এক্সপ্রেসে এই রুটে। বলে তাকালেন সুনীল রায়ের আতংকিত নিশ্চুপ মুখের দিকে।
সুনীল রায় সব শুনে বললেন। আপনি তাহলে মৃত্যুকে খুব কাছ থেকে দেখলেন! জীবনের কিছু কিছু ঘটনা কিছু কিছু মহূর্তে আমাদের জমানো স্মৃতি আমাদের ভীষণ ভাবে নাড়া দেয়। সব কিছু বদলে দেয়। আমরা শত চাইলে ও তখন তেমন কিছু করতে পারি না। সহজ স্বাভাবিক জীবন চলতে থাকলে; হুট করেই বিধাতা নারাজ হয়ে যান। তাঁর মনে হয় সহজ জীবন হলে তো কেউ আমাকে স্মরণ করবে না। তাই বিপদে ফেলে নিজের গুনগান শুনতে পছন্দ করেন তিঁনি। আমাদের সাথে এমনি হয় সবসময়। 
‘আপনি আপনার মেয়ের কাছে ফিরে গিয়েছিলেন!’
হুম গিয়েছিলাম। বলে উদাস হয়ে রাতের ট্রেন থেকে বাইরে আকাশের দিকে তাকালেন; কালো পুরু কাঁচের চশমা চোখের ‘কায়সার মাহমুদ’। এক ধ্যানে বাইরে তাকিয়ে আছেন। রাতের আঁধারের ছুটে চলা ট্রেনটির বাইরে, ফেলে চলা স্টেশন গুলোর দিকে মনোনিবেশ করলেন।
গভীর রাতের চট্রগ্রাম এক্সপেস ট্রেন ছুটে চলছে।ট্রেনের অদ্ভুত নেশা ধরা শব্দ হচ্ছে।
 ঝিকঝিক ঝিকঝিক ঝিকঝিক…. 
রাতের আকাশ নিরবতা নিয়ে ঝুলে আছে ট্রেনের জানালায়। দূরে কিছু জনবসতি আর তার টিপটিমে ইলেক্ট্রিসিটি বাল্ব জ্বলছে। মৃদুমন্দ হাওয়ায় শীতলতা ছুঁয়ে যাচ্ছে ট্রেনের জেগে থাকা রাতের যাত্রীদের মনে।
নতুন কোন নাম না জানা স্টেশন পেরনোর সময় হুইসেল দিয়ে ছুটে যাচ্ছে ট্রেন। 
কু-ঝিকঝিক ঝিকঝিক..
এমন সময় সুনীল রায় বললেন। ‘হুম’ তাহলে, আপনি আর কিছু বলবেন না। জীবনের চাওয়া পাওয়া আর সকল ইচ্ছেগুলো যখন জীবনে এসে ধরা দেয় তখনি সব কিছু বদলে যায়, এলোমেলো হয়ে যায় সব কিছু। এইযে দেখুন না বিয়েই করলাম না এক জীবনে। আপনার তো তাও একটা গল্প আছে। আমার বলার মত তাে তাও নেই। কিন্তু সবার গল্পটার শেষটাই কিন্তু এক; আপনার, আমার, সবার। কিছু মনে না করলে রাতের ট্রেনের জ্বলন্ত এই দূর্ঘটনার সাক্ষী! আপনার- একটা আলোকচিত্র তুলতে পারি? আমি একজন আলোক চিত্র শিল্পী; নাম সুনীল রায়। 
হুম; আমি কায়সার মাহমুদ। ছবি তুলবেন ঠিক আছে। বলে হাসতে চেষ্টা করলেন। অদ্ভুত আলো ছায়ার আদলে শান্ত শীতল কন্ঠে বললেন মৃত মানুষের ছায়া আছে জানেন। তাঁদের ছায়া ঘুড়ে ফেরেন। 
চিত্র ফ্রেম বন্দি করার মূহূর্তে; সুনীল রায় বললেন। হুম জানি; দেখছেন না আমার ছায়া আছে।
কায়সার মাহমুদ আনমনে হতাশা নিয়ে বললেন। ছবি তুলে লাভ নেই ভাই। আমার ছবি ধোলাই করলে শুধু মৃত্যুর ছায়াটাই দেখতে পাবেন বুঝলেন! আলো ছায়ার কোন দৃশ্য আপনি চাইলেও ফ্রেম বন্ধি করতে পারবেন না।
‘আমি জীবত নই একজন পরপারের মৃত মানুষ’।
শীতল চেখে নির্লিপ্ত কন্ঠে সুনীল রায় বললেন। ‘হুম’ বুঝেছি। পৃথিবীতে আলো ছায়ার একটা দুনিয়া তো আছে। আলো আছে ছায়া থাকবে না। বিশাল এই পৃথিবীর কতটুকুই আর আমরা জানি। আলো ছায়ার এই জগতে আমার ক্যামেরা আর আমি দু’জনেই অনেক পুরোনো আর মৃত। মারা গেছি সেই সেদিন ঝড়ের রাতে চিটাগাং এক্সপ্রেসে। ক্যামেরার মায়া কাটিয়ে উঠতে পারিনি আজো। তাই ক্যামেরা হাতে আমার ছায়া এই রুটেই রাতের বেলা ঘুড়ে ফেরেন। 
বলে রক্তশুন্য বিমর্ষ হাসি দিতে চেষ্টা করলো ‘আলোকচিত্র শিল্পী’ সুনীল রায়। 
নিজের মতন আরেকজন মৃত মানুষকে দেখে কায়সার মাহমুদ কিছু বললেন না। চুপ করে রাতের ট্রেনের হুইসেল শুনছেন। শেষ স্টেশন চলে এসেছে কাছেই।
চারিদেকে শুনশান নিরব আঁধারের আধো আলো। নিরস প্রাণহীন একটা সময়। রাতের বাতী গুলো নিভে গেছে অনেক আগেই। ঘুমন্ত এক অন্ধকারের খেলা এই পৃথিবীর সমস্তটা জুড়ে। রাতের আঁধার ভেদ করে, ঘুম থেকে জেগে উঠা দু’একটা করে হতচকিত মানুষের সংখ্যা বাড়ছে কেবল। অনিশ্চিত একটা আলোড়িত ট্রেন ছুটে চলেছে অজানা এক অসীম গন্তব্যে। যেখানে শরু আছে শেষ নেই। জীবত মানুষ গুলোর মধ্য থেকে আজো আরো কিছু মৃত মানুষের ছায়া পড়বে ট্রেনটায়।
আলো ছায়ার এই পৃথিবীতে দুটি ভিন্ন জগৎ সমান্তরাল ভাবে চলে যায় অসীম গন্তব্যের দিকে। 

 499 total views,  1 views today

মন্তব্য করুন

আপনার লেখা প্রকাশ করুন

লেখা গুলো ই-মেইলে পেতে সাবস্ক্রাইব করুন

এই বিষয়টি আপনার যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করুন

মন্তব্য বন্ধ আছে।

এই বিভাগের আরো লেখা
© All rights reserved © 2019 www.atikurbd.com
Customized BY NewsTheme