1. atikur.bdco@gmail.com : admin :
মরহুমা ফজিলাতুন্নেছা জোহার প্রতি গভীর শ্রদ্ধাঞ্জলি - www.atikurbd.com
ঘোষণা :
লেখা আহবান শিক্ষা গুরু, রবিউল ইসলাম মরহুমা ফজিলাতুন্নেছা জোহার প্রতি গভীর শ্রদ্ধাঞ্জলি খেলার সাথী, রবিউল ইসলাম পদ্মা_সেতু,যা আপনার জানা উচিত স্মৃতির পাতায় একজন আবদুল গাফফার চৌধুরী শেখ হাসিনার দিল্লী নির্বাসনঃ কেমন ছিল দিনগুলো? বিপর্যস্ত চাষী, রবিউল ইসলাম আজ ১৭ মে বঙ্গবন্ধুকন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার ঐতিহাসিক স্বদেশ প্রত্যাবর্তন প্রকৃতির প্রেম – রবিউল ইসলাম স্মৃতিতে ৭১-এর ১৭ই এপ্রিল ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস রবিউল ইসলাম স্মৃতি বড় মধুর আজ ২৬শে মার্চ মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস। ঘাতক জননী, রবিউল ইসলাম রবিউল ইসলামের কবিতা বাল্যবন্ধু রবিউল ইসলামের কবিতা,শোক সংবাদ রবিউল ইসলামের কবিতা পরিত্যক্ত বিশ্ববাসীকে মুক্তিযুদ্ধের প্রকৃত তথ্য জানাতে বিশ্ব সফর করেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী শ্রীমতি ইন্দিরা গান্ধী রবিউল ইসলামের কবিতা, নারী রবিউল ইসলামের কবিতা, মহাজন পুর নির্ঘুম শহর– দালান জাহান তুমি শোক নও,শক্তি How to create a profilebacklink হে জ্যোতির্ময় ১১ আগষ্ট থেকে চালু হচ্ছে হাইকোর্ট বিভাগের সকল বেঞ্চ ৮-১২ই আগষ্ট পর্যন্ত বিচারকাজ পরিচালনায় হাইকোর্ট বিভাগে ১২ টি বেঞ্চ গঠন রবিবার থেকে চালু হচ্ছে আপীল বিভাগের বিচারিক কার্যক্রম মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে খোলা চিঠি হাইকোর্টে নতুন আরও ৯ বেঞ্চ গঠন একজন বিচক্ষণ বাদশার গল্প সিপিবি’র প্রাথমিক বাজেট প্রতিক্রিয়া অর্থ আয়ের পথ সহজ করল ইউটিউব! করোনায় ৪০ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ১৬৭৫ ২৪ ঘণ্টায় ২৮ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ১৩৫৪ ৩৫ ভার্চুয়াল ও ১৮ রেগুলার বেঞ্চ চেয়ে প্রধান বিচারপতিকে স্মারকলিপি ২৪ ঘণ্টায় ২৫ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ৩৬৩ আজ মৃত্যু ৩৩ পরীক্ষা ১৪১৮৪ শনাক্ত ১২৩০ সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে আপাতত গাছ কাটা নিষিদ্ধ করেছে হাইকোর্ট আদালতের ইংরেজি রায় বাংলা করবে ‘আমার ভাষা’ সফটওয়্যার জেনে নিন বাংলায় ব্যবহৃত ১২৮টি যুক্তবর্ণ দেওয়ানি আদালতের আর্থিক বিচারিক এখতিয়ার বৃদ্ধির গেজেট প্রকাশ জেল-জরিমানার বিধান রেখে খাসজমি উদ্ধারে আসছে নতুন আইন রায়ে আমৃত্যু উল্লেখ না করলে যাবজ্জীবন ৩০ বছর বাংলার বাঘ শের ই বাংলা শীতে বিচারপতি-আইনজীবীদের পরতে হবে কালো কোট আমেরিকার নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের কিছু তথ্যঃ- আওয়ামী যুবলীগ এর ৪৮তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী ৩ রা নভেম্বর বাঙালী জাতির ইতিহাসে এক বেদনাবিধুর দিন আইন, বিবেক, নীতির বাতিঘর ও জাতীয় ঐক্যের প্রতিক হিসাবে সকলের প্রিয়জন ব্যারিষ্টার রফিক-উল হক অধস্তন আদালতে অবকাশকালীন ছুটি কমলো ব্যারিস্টার রফিক-উল হক আর নেই তালিকাভুক্তির দাবিতে প্রেস ক্লাবে শিক্ষানবিশ আইনজীবীদের আমরণ অনশন ডিসেম্বরে সুপ্রিম কোর্টের অবকাশকালীন ছুটি বহাল বন্ধ হোক বিচারহীনতা এবং ধর্ষন গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর সুস্থতার হার ৭৭ শতাংশ ছাড়িয়েছে অ্যাটর্নি জেনারেল হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির বর্তমান সভাপতি ও জ্যেষ্ঠ আইনজীবী অ্যাডভোকেট আবু মোহাম্মদ (এএম) আমিন উদ্দিন অ্যাটর্নি জেনারেল অ্যাডভোকেট মাহবুবে আলম আর আমাদের মাঝে নেই ১৬ বছর কারাভোগের পর ফাঁসির আসামি খালাস বার কাউন্সিলে অ্যাডভোকেট তালিকাভুক্তির লিখিত পরীক্ষা স্থগিত অ্যাটর্নি জেনারেলের অবস্থার অবনতি, নেয়া হয়েছে আইসিউতে জামিন সংক্রান্ত বিষয়ে বিচারিক আদালতকে হাইকোর্টের চার নির্দেশনা ২৬ সেপ্টেম্বরই হচ্ছে বার কাউন্সিলের লিখিত পরীক্ষা অ্যাটর্নি জেনারেল করোনা আক্রান্ত, সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে ভর্তি “উন্নয়নের রোলমডেল শেখ হাসিনা” আপিল বিভাগে নিয়োগ পেলেন দুই বিচারপতি করোনায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৪৩১৬ সোমবার থেকে শ্রম ভবনে লাগাতার অবস্থান কর্মসূচি ঘোষণা আন্দোলনরত ড্রাগন গ্রুপের শ্রমিকদের আদালত সুপ্রিম কোর্ট বারে তলবি সভার আহ্বানে ৩১ আইনজীবীর আবেদন চিরঞ্জীব বঙ্গবন্ধু করোনায় ২৪ ঘন্টায় আরো ৪১ জনের মৃত্যু এবং নতুন শনাক্ত আরো ৩৮২২ সুপ্রিম কোর্টের সব অবকাশকালীন ছুটি বাতিল জেনে নিন ১০(দশ)টি শ্রম আদালতের অধিক্ষেত্র আগামীকাল কমরেড জ্ঞান চক্রবর্তীর ৪৩তম মৃত্যুবার্ষিকী ভার্চ্যুয়াল পদ্ধতিতে সপ্তাহে ৩ দিন চলবে চেম্বার আদালত করোনায় আরও ৩৪ জনের জনের মৃত্যু কোর্টের ভেতর সামাজিক দূরত্ব মানলেও সেকশনে হুড়োহুড়ি খুলনায় পাটকল শ্রমিকদের আন্দোলন কর্মসূচিতে সিপিবি’র সংহতি ও একাত্মতা প্রকাশ জামিন-স্থগিতাদেশের কার্যকারিতার মেয়াদ বাড়লো ৩ দফা দাবিতে শিক্ষানবিশ আইনজীবীদের সমাবেশ আগামী ২৩ আগষ্ট মাস্ক পরতে বাধ্য করা এবং সচেতনতা বাড়াতে মোবাইল কোর্ট বিকাশ দিয়ে উবারে পেমেন্ট সুবিধা চালু উচ্চ আদালতে করোনাকালীন ড্রেস কোড নির্ধারণ বার কাউন্সিলে লিখিত পরীক্ষা চেয়ে রিটের আদেশ আগামী সপ্তাহে উচ্চ আদালতে মামলা পরিচালনায় সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশনা আগামী বুধবার থেকে খুলছে সুপ্রিম কোর্ট, ৩৫ টি ভার্চুয়াল এবং ১৮ টি রেগুলার বেঞ্চ গঠন করোনায় আরো ৩৯ জনের মৃত্যু সাবমেরিন ক্যাবলের সংযোগ বিচ্ছিন্ন, ইন্টারনেটে ধীরগতি দুর্নীতি অভিযোগ পেলে কঠোর ব্যবস্থা,বেঞ্চ অফিসারদের বদলির সিন্ধান্ত শ্রমিক নেতা খাইরুল মামুন মিন্টুর ৪০ তম জন্মদিন আজ কেউ কথা রাখেনি – সুনীল গঙ্গোপাধ্যায় দেশে করোনায় ৩৩৩৩ জনের মৃত্যু নিয়মিত আদালতের পাশাপাশি ভার্চুয়াল মাধ্যমেও চলবে দেশের সর্বোচ্চ আদালত সুপ্রিম কোর্ট করোনায় ২৪ ঘন্টায় আরো ৩৯ জনের মৃত্যু করোনায় ২৪ ঘন্টায় আরো ৩৩ জনের মৃত্যু ফুলকোর্ট সভা বৃহস্পতিবার: সুপ্রিম কোর্টের স্বাভাবিক বিচারকার্যক্রম প্রসঙ্গ করোনায় ২৪ ঘন্টায় আরো ৫০ জনের মৃত্যু জাহিদ হাসান ঈদ স্মৃতি — জাহিদ হাসান করোনাভাইরাসে গত ২৪ ঘণ্টায় ৩০ জনের মৃত্যু বন্যা পরিস্থিতিতে সিপিবির গভীর উদ্বেগ সরকারের যথাযথ উদ্যোগের অভাবে হাহাকার বাড়ছে
শিরোনাম :
লেখা আহবান শিক্ষা গুরু, রবিউল ইসলাম মরহুমা ফজিলাতুন্নেছা জোহার প্রতি গভীর শ্রদ্ধাঞ্জলি খেলার সাথী, রবিউল ইসলাম পদ্মা_সেতু,যা আপনার জানা উচিত স্মৃতির পাতায় একজন আবদুল গাফফার চৌধুরী শেখ হাসিনার দিল্লী নির্বাসনঃ কেমন ছিল দিনগুলো? বিপর্যস্ত চাষী, রবিউল ইসলাম আজ ১৭ মে বঙ্গবন্ধুকন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার ঐতিহাসিক স্বদেশ প্রত্যাবর্তন প্রকৃতির প্রেম – রবিউল ইসলাম স্মৃতিতে ৭১-এর ১৭ই এপ্রিল ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস রবিউল ইসলাম স্মৃতি বড় মধুর আজ ২৬শে মার্চ মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস। ঘাতক জননী, রবিউল ইসলাম রবিউল ইসলামের কবিতা বাল্যবন্ধু রবিউল ইসলামের কবিতা,শোক সংবাদ রবিউল ইসলামের কবিতা পরিত্যক্ত বিশ্ববাসীকে মুক্তিযুদ্ধের প্রকৃত তথ্য জানাতে বিশ্ব সফর করেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী শ্রীমতি ইন্দিরা গান্ধী রবিউল ইসলামের কবিতা, নারী রবিউল ইসলামের কবিতা, মহাজন পুর নির্ঘুম শহর– দালান জাহান তুমি শোক নও,শক্তি How to create a profilebacklink হে জ্যোতির্ময় ১১ আগষ্ট থেকে চালু হচ্ছে হাইকোর্ট বিভাগের সকল বেঞ্চ ৮-১২ই আগষ্ট পর্যন্ত বিচারকাজ পরিচালনায় হাইকোর্ট বিভাগে ১২ টি বেঞ্চ গঠন রবিবার থেকে চালু হচ্ছে আপীল বিভাগের বিচারিক কার্যক্রম মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে খোলা চিঠি হাইকোর্টে নতুন আরও ৯ বেঞ্চ গঠন একজন বিচক্ষণ বাদশার গল্প সিপিবি’র প্রাথমিক বাজেট প্রতিক্রিয়া অর্থ আয়ের পথ সহজ করল ইউটিউব! করোনায় ৪০ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ১৬৭৫ ২৪ ঘণ্টায় ২৮ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ১৩৫৪ ৩৫ ভার্চুয়াল ও ১৮ রেগুলার বেঞ্চ চেয়ে প্রধান বিচারপতিকে স্মারকলিপি ২৪ ঘণ্টায় ২৫ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ৩৬৩ আজ মৃত্যু ৩৩ পরীক্ষা ১৪১৮৪ শনাক্ত ১২৩০ সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে আপাতত গাছ কাটা নিষিদ্ধ করেছে হাইকোর্ট আদালতের ইংরেজি রায় বাংলা করবে ‘আমার ভাষা’ সফটওয়্যার জেনে নিন বাংলায় ব্যবহৃত ১২৮টি যুক্তবর্ণ দেওয়ানি আদালতের আর্থিক বিচারিক এখতিয়ার বৃদ্ধির গেজেট প্রকাশ জেল-জরিমানার বিধান রেখে খাসজমি উদ্ধারে আসছে নতুন আইন রায়ে আমৃত্যু উল্লেখ না করলে যাবজ্জীবন ৩০ বছর বাংলার বাঘ শের ই বাংলা শীতে বিচারপতি-আইনজীবীদের পরতে হবে কালো কোট আমেরিকার নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের কিছু তথ্যঃ- আওয়ামী যুবলীগ এর ৪৮তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী ৩ রা নভেম্বর বাঙালী জাতির ইতিহাসে এক বেদনাবিধুর দিন আইন, বিবেক, নীতির বাতিঘর ও জাতীয় ঐক্যের প্রতিক হিসাবে সকলের প্রিয়জন ব্যারিষ্টার রফিক-উল হক অধস্তন আদালতে অবকাশকালীন ছুটি কমলো ব্যারিস্টার রফিক-উল হক আর নেই তালিকাভুক্তির দাবিতে প্রেস ক্লাবে শিক্ষানবিশ আইনজীবীদের আমরণ অনশন ডিসেম্বরে সুপ্রিম কোর্টের অবকাশকালীন ছুটি বহাল বন্ধ হোক বিচারহীনতা এবং ধর্ষন গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর সুস্থতার হার ৭৭ শতাংশ ছাড়িয়েছে অ্যাটর্নি জেনারেল হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির বর্তমান সভাপতি ও জ্যেষ্ঠ আইনজীবী অ্যাডভোকেট আবু মোহাম্মদ (এএম) আমিন উদ্দিন অ্যাটর্নি জেনারেল অ্যাডভোকেট মাহবুবে আলম আর আমাদের মাঝে নেই ১৬ বছর কারাভোগের পর ফাঁসির আসামি খালাস বার কাউন্সিলে অ্যাডভোকেট তালিকাভুক্তির লিখিত পরীক্ষা স্থগিত অ্যাটর্নি জেনারেলের অবস্থার অবনতি, নেয়া হয়েছে আইসিউতে জামিন সংক্রান্ত বিষয়ে বিচারিক আদালতকে হাইকোর্টের চার নির্দেশনা ২৬ সেপ্টেম্বরই হচ্ছে বার কাউন্সিলের লিখিত পরীক্ষা অ্যাটর্নি জেনারেল করোনা আক্রান্ত, সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে ভর্তি “উন্নয়নের রোলমডেল শেখ হাসিনা” আপিল বিভাগে নিয়োগ পেলেন দুই বিচারপতি করোনায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৪৩১৬ সোমবার থেকে শ্রম ভবনে লাগাতার অবস্থান কর্মসূচি ঘোষণা আন্দোলনরত ড্রাগন গ্রুপের শ্রমিকদের আদালত সুপ্রিম কোর্ট বারে তলবি সভার আহ্বানে ৩১ আইনজীবীর আবেদন চিরঞ্জীব বঙ্গবন্ধু করোনায় ২৪ ঘন্টায় আরো ৪১ জনের মৃত্যু এবং নতুন শনাক্ত আরো ৩৮২২ সুপ্রিম কোর্টের সব অবকাশকালীন ছুটি বাতিল জেনে নিন ১০(দশ)টি শ্রম আদালতের অধিক্ষেত্র আগামীকাল কমরেড জ্ঞান চক্রবর্তীর ৪৩তম মৃত্যুবার্ষিকী ভার্চ্যুয়াল পদ্ধতিতে সপ্তাহে ৩ দিন চলবে চেম্বার আদালত করোনায় আরও ৩৪ জনের জনের মৃত্যু কোর্টের ভেতর সামাজিক দূরত্ব মানলেও সেকশনে হুড়োহুড়ি খুলনায় পাটকল শ্রমিকদের আন্দোলন কর্মসূচিতে সিপিবি’র সংহতি ও একাত্মতা প্রকাশ জামিন-স্থগিতাদেশের কার্যকারিতার মেয়াদ বাড়লো ৩ দফা দাবিতে শিক্ষানবিশ আইনজীবীদের সমাবেশ আগামী ২৩ আগষ্ট মাস্ক পরতে বাধ্য করা এবং সচেতনতা বাড়াতে মোবাইল কোর্ট বিকাশ দিয়ে উবারে পেমেন্ট সুবিধা চালু উচ্চ আদালতে করোনাকালীন ড্রেস কোড নির্ধারণ বার কাউন্সিলে লিখিত পরীক্ষা চেয়ে রিটের আদেশ আগামী সপ্তাহে উচ্চ আদালতে মামলা পরিচালনায় সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশনা আগামী বুধবার থেকে খুলছে সুপ্রিম কোর্ট, ৩৫ টি ভার্চুয়াল এবং ১৮ টি রেগুলার বেঞ্চ গঠন করোনায় আরো ৩৯ জনের মৃত্যু সাবমেরিন ক্যাবলের সংযোগ বিচ্ছিন্ন, ইন্টারনেটে ধীরগতি দুর্নীতি অভিযোগ পেলে কঠোর ব্যবস্থা,বেঞ্চ অফিসারদের বদলির সিন্ধান্ত শ্রমিক নেতা খাইরুল মামুন মিন্টুর ৪০ তম জন্মদিন আজ কেউ কথা রাখেনি – সুনীল গঙ্গোপাধ্যায় দেশে করোনায় ৩৩৩৩ জনের মৃত্যু নিয়মিত আদালতের পাশাপাশি ভার্চুয়াল মাধ্যমেও চলবে দেশের সর্বোচ্চ আদালত সুপ্রিম কোর্ট করোনায় ২৪ ঘন্টায় আরো ৩৯ জনের মৃত্যু করোনায় ২৪ ঘন্টায় আরো ৩৩ জনের মৃত্যু ফুলকোর্ট সভা বৃহস্পতিবার: সুপ্রিম কোর্টের স্বাভাবিক বিচারকার্যক্রম প্রসঙ্গ করোনায় ২৪ ঘন্টায় আরো ৫০ জনের মৃত্যু জাহিদ হাসান ঈদ স্মৃতি — জাহিদ হাসান করোনাভাইরাসে গত ২৪ ঘণ্টায় ৩০ জনের মৃত্যু বন্যা পরিস্থিতিতে সিপিবির গভীর উদ্বেগ সরকারের যথাযথ উদ্যোগের অভাবে হাহাকার বাড়ছে

মরহুমা ফজিলাতুন্নেছা জোহার প্রতি গভীর শ্রদ্ধাঞ্জলি

  • প্রকাশ : শুক্রবার, ৮ জুলাই, ২০২২
  • ২৩২ বার পড়া হয়েছে

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম ছাত্রী ও বাংলাদেশের প্রথম নারী অধ্যক্ষ বাঙ্গালী জাতির নারী শিক্ষার চির প্রেরনার উৎস্য মরহুমা ফজিলাতুন্নেছা জোহার প্রতি গভীর শ্রদ্ধাঞ্জলি জ্ঞাপন করছি।

★১৯৫৬ সাল পর্যন্ত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইনে ছিলো, একটা ছেলে যদি একজন মেয়ের সাথে কথা বলতে চায়, তবে তাকে প্রক্টর বরাবর দরখাস্ত দিতে হবে। শুধুমাত্র প্রক্টর অনুমতি দিলেই সে কথা বলতে পারবে। এছাড়া নয়। এমনকি তার ক্লাসের কোন মেয়ের সাথেও না।

★ডিসেম্বর ১৯২৭, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার মাত্র ৬ বছর পর একদিন কোলকাতা থেকে একজন যুবক এলেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ঘুরে দেখবেন। কয়েকজন বন্ধু বান্ধব নিয়ে সে ঘুরতে বের হলো। তখন কার্জন হল ছিলো বিজ্ঞান ভবন। ঘুরতে ঘুরতে যখন কার্জন হলের সামনে এসে পড়লো তাঁরা, সে যুবক দেখলো দূরে একটা থ্রী কোয়ার্টার হাতার ব্লাউজ আর সুতির শাড়ী পরা এক মেয়ে দাঁড়িয়ে আছে। সে তাঁর বন্ধুদের জিজ্ঞেস করলেন, এই মেয়েটি কে? তখন তাঁর বন্ধুরা বললো, এ হলো ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম মুসলিম নারী ছাত্রী। তখন সেই যুবক বলে, সত্যি? আমি এই মেয়ের সাথে কথা বলবো। তখন সে যুবক মেয়েটির সাথে কথা বলার জন্য একটু এগিয়ে গেলে তাঁর বন্ধুরা তাঁকে বাঁধা দেয়। বলে, না তুমি যেওনা। আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ে মেয়েদের সাথে কথা বলার অনুমতি নেই। তুমি যদি ওর সাথে অনুমতি ছাড়া কথা বলো তবে তোমার শাস্তি হবে। সেই যুবক বলল, “আমি মানি না কোন বাঁধা, মানি না কোন আইন।”সেই যুবক হেঁটে হেঁটে গিয়ে সেই মেয়েটির সামনে দাঁড়ালো। তারপর তাঁকে বলল, আমি শুনেছি আপনি এই বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম মুসলিম নারী ছাত্রী। কি নাম আপনার? মেয়েটি মাথা নীচু করে বললো, ফজিলাতুন্নেছা। জিজ্ঞাসা করলো, কোন সাবজেক্টে পড়েন? বললো গণিতে। গ্রামের বাড়ি কোথায়? টাঙ্গাইলের করটিয়া। ঢাকায় থাকছেন কোথায়? সিদ্দিকবাজার। এবার যুবক বললেন, আপনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম মুসলিম নারী ছাত্রী, আপনার সাথে কথা বলে আমি খুব আপ্লুত হয়েছি। আজই সন্ধ্যায় আমি আপনার সাথে দেখা করতে আসবো। মেয়েটি চলে গেলো। এই সব কিছু দূরে দাঁড়িয়ে এসিস্ট্যান্ট প্রক্টর স্যার দেখছিলেন। তার ঠিক তিনদিন পর। ২৯ ডিসেম্বর ১৯২৭, কলা ভবন আর বিজ্ঞান ভবনের নোটিশ বোর্ডে হাতে লেখা বিজ্ঞপ্তি টানিয়ে দেয়া হলো যুবকের নামে। তার নাম লেখা হলো, তার বাবার নাম লেখা হলো এবং বিজ্ঞপ্তিতে বলা হলো, এই যুবকের আজীবনের জন্য ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রবেশ নিষিদ্ধ।

★ তারপরে এই যুবক আর কোনদিন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে আসেননি। সেইদিনের সেই যুবক, বৃদ্ধ বয়সে ১৯৭৬ সালের ২৯ আগস্ট মৃত্যুবরণ করলেন। যে যুবকটা আর কোনদিন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রবেশ করেননি, তাঁর মৃত্যুর পরে তাঁর কবর হলো ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে।

★ সেই যুবকটি আর কেউ নন, নিপীড়িত মানবতার কবি, সাম্যের কবি, বাংলা ভাষাভাষী মানুষের অহংকার, আমাদের জাতীয় কবি, বিদ্রোহী কবি কাজী নজরুল ইসলাম। তার অমর গান ‘মসজিদেরই পাশে আমার কবর দিও ভাই’ এ ব্যক্ত অন্তিম ইচ্ছে অনুযায়ী ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় মসজিদের পাশেই তাকে সমাধিস্থ করা হয়। বিদ্রোহী কবি কাজী নজরুল ইসলাম।

★ ফজিলাতুন্নেসা জোহাকে নিয়ে কবি নজরুল ‘বর্ষা বিদায়’ কবিতা লেখেন। শুনেছি কবি নাকি তাঁকে প্রেম নিবেদনও করেছিলেন! সাড়া না পেয়েই নাকি তাঁর উদ্দেশ্যে কবিতা লিখেছিলেন।

★ টাঙ্গাইলের সদর থানার নামদার কুমুল্লী গ্রামে জন্ম নেয়া আন্তর্জাতিক অঙ্গনে আলোক উদ্ভাসিতকারী, মহিয়সী নারী বেগম ফজিলতুন্নেসা জোহা ।

★ বেগম ফজিলতুন্নেসা জোহা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম মুসলমান ছাত্রী ও ঢাকা ইডেন কলেজের অধ্যক্ষ ছিলেন (১৯৪৮-৫৭)। তিনিই প্রথম বাঙালি মুসলমান ছাত্রী যিনি উচ্চ শিক্ষার্থে স্কলারশিপ নিয়ে বিদেশে যান।

★বেগম ফজিলতুন্নেসা সম্পর্কে পরিচয় পাওয়া যায় কাজী মোতাহার হোসেনের লেখা থেকে….
“ বেগম ফজিলতুন্নেসা অসামান্য সুন্দরীও ছিলেন না অথবা বীনানিন্দিত মঞ্জুভাষিণীও ছিলেন না। ছিলেন অঙ্কের এম এ এবং একজন উচুঁদরের বাক্‌পটু মেয়ে।

★ জন্ম : বেগম ফজিলতুন্নেসার জন্ম ১৮৯৯ সালের ৮ জুলাই টাঙ্গাইল জেলার সদর থানার নামদার কুমুল্লী গ্রামে। পিতার নাম ওয়াজেদ আলী খাঁ, মাতা হালিমা খাতুন।

★শিক্ষা★
★ মাত্র ৬ বছর বয়সে ওয়াজেদ আলী খাঁ ফজিলতুন্নেসাকে করটিয়ার প্রাইমারি স্কুলে ভর্তি করে দেন। তিনি ১৯২১ সালে প্রথম বিভাগে ম্যাট্রিক ও ১৯২৩ সালে প্রথম বিভাগে ইডেন কলেজ থেকে আইএ পাস করেন। ফজিলাতুন্নেছা ১৯২৫ সালে কলকাতার বেথুন কলেজ থেকে প্রথম বিভাগে বিএ পাস করেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ১৯২৭ সালে গণিত শাস্ত্রে এমএ-তে ফার্স্ট ক্লাশ ফার্স্ট (গোল্ড মেডালিস্ট) হয়েছিলেন। অতঃপর তিনি ১৯২৮ সালে বিলেতে উচ্চ শিক্ষা গ্রহণের জন্য গমন করেন।নিখিল বঙ্গে তিনিই প্রথম মুসলিম মহিলা গ্র্যাজুয়েট। উপমহাদেশে মুসলিম মহিলাদের মধ্যে তিনিই প্রথম বিলেত থেকে ডিগ্রি এনেছিলেন। তাঁর পড়াশোনার ব্যাপারে করটিয়ার জমিদার মরহুম ওয়াজেদ আলী খান পন্নী (চাঁদ মিয়া) বিশেষ উৎসাহ ও অর্থ সাহায্য করতেন।

★ কবি নজরুল ও ফজিলতুনন্নেসা…..

অন্য নারীদের তুলনায় কবির সঙ্গে ফজিলাতুন্নেসার ব্যাপারটি অন্য রকম। এই একটি সম্পর্ক রূঢ় প্রত্যাখ্যানের রূপটি চিনিয়েছিলো কবিকে। সমুদ্রের ঢেউভাঙা জলের মতো নজরুলের নিবেদন স্পর্শ করতে চেয়েছে ফজিলাতুন্নেসার চরণ কিন্তু কি আশ্চর্য উপেক্ষার শক্তি ছিল শ্যামাঙ্গী তরুণীর! তিনি ফিরে তাকালেন না, বরং ব্যঙ্গ-বিদ্রুপ-অবহেলায় ক্ষত-বিক্ষত করেছেন কবির হৃদয়!

এ-সংক্রান্ত নজরুলের মোট আটটি চিঠি উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছে। তার মধ্যে কাজী মোতাহার হোসেনকে লেখা সাতটি এবং ফজিলাতুন্নেসাকে লেখা একটি চিঠিতে যে ব্যথিত-অপমানিত, কাতর ও গ্লানি-জর্জরিত নজরুলকে পাওয়া যায়, তা তুলনারহিত। এখানে বলা বোধ হয় অপ্রসাঙ্গিক হবে না, বন্ধুকে লেখা চিঠিগুলোর প্রাপক কাজী মোতাহার হোসেন হলেও তিনি চাইতেন—এই চিঠিগুলো ফজিলাতুন্নেসাও পড়ুক। তাঁর চিঠিতে সেই আগ্রহের কথা উল্লেখ আছে।

প্রথমেই এ কথা জানিয়ে রাখা যাক, ফজিলাতুন্নেসা ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম মুসলিম ছাত্রী। তাঁর বাবা আবদুল ওয়াহেদ খান টাঙ্গাইলের করটিয়ার জমিদারবাড়িতে চাকরি করতেন। তবে ধারণা করা যায়, মেয়েকে ঢাকায় রেখে বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ানোর মতো আর্থিক সংগতি তাঁর ছিল না। কিন্তু ফজিলাতুন্নেসার জীবনের লক্ষ্য যেমন ছিল সুদূর; সেই লক্ষ্য পূরণে তাঁর সাহস ও একাগ্রতাও ছিল বিস্ময়কর।

সেই আমলে রক্ষণশীল সমাজে একজন মুসলিম মেয়ের পক্ষে ঢাকায় একা থেকে (মাঝে মাঝে তাঁর বোন শফিকুন্নেসা তাঁর সঙ্গে থাকতেন) বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়াশোনা চালিয়ে যাওয়া কতটা দুরূহ ছিল, আজকের দিনে তা কল্পনা করাও কঠিন। কিন্তু ফজিলাতুন্নেসা বৃত্তি নিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে শুধু যে পড়াশোনা করেছেন তা নয়, গণিতশাস্ত্রে প্রথম শ্রেণিতে প্রথম স্থান পেয়ে তাঁর মেধারও প্রমাণ রেখেছেন।

১৯২৮ সালে মুসলিম সাহিত্য সমাজের দ্বিতীয় বার্ষিক সম্মেলনে দ্বিতীয় দফা অতিথি হিসেবে বাংলাদেশে এসেছিলেন বিদ্রোহী কবি কাজী নজরুল।

এই সংগঠনের সম্পাদক কাজী মোতাহার হোসেনের বর্ধমান হাউসের বাড়িতে আতিথ্য গ্রহণ করেছিলেন তিনি। এ সময়ে ফজিলাতুন্নেসা নজরুল হস্তরেখা দেখে ভাগ্য গণনা করতে পারেন শুনে নিজের ‘ভাগ্য ও ভবিষ্যৎ’ জানতে আগ্রহী হয়েছিলেন।এ কথা শোনে বন্ধু মোতাহারকে নিয়ে তাঁর বাসায় গিয়ে উপস্থিত হয়েছিলেন নজরুল। হস্তরেখা বিশ্লেষণ পর্যন্ত ব্যাপারটা ছিল স্বাভাবিক। কিন্তু এর পরের ঘটনাটি রহস্যময়। সেই রহস্যের কিনারা এখনো হয়নি। তবে কাজী মোতাহার হোসেনের স্মৃতিচারণায় এটুকু ইঙ্গিত পাওয়া যায়, এরপর কোনো এক রাতে ফজিলাতুন্নেসার দেওয়ানবাজারের বাড়িতে একা গিয়ে হাজির হয়েছিলেন নজরুল। এই বিদূষী নারীর কাছে প্রেম নিবেদন করেছিলেন। কিন্তু এতকাল কবির সঙ্গে যে তরুণীদের সান্নিধ্যের সুযোগ হয়েছিলো, ফজিলাতুন্নেসা ছিলেন তার ব্যতিক্রম। অন্য ধাতুতে গড়া এই নারী, তাৎক্ষণিক প্রত্যাখ্যান করেছিলেন তাঁকে। প্রত্যাখ্যানের ভাষা ও আচরণ ছিল রীতিমতো কঠোর। এই আঘাত মানসিকভাবে বিপর্যস্ত করেছিলো কবিকে।

নজরুল ফজিলতুন্নেসার বিলেত গমন উপলেক্ষে ‘’বর্ষা-বিদায়” নামক একটি কবিতা লেখেন। কলকাতা ফিরে গিয়ে নজরুল ফজিলতুন্নেসাকে একটি কাব্যিক চিঠি লেখেন। সেই কাব্যিক চিঠির নাম রহস্যময়ী (পরে তুমি মোরে ভুলিয়াছ নাম দেওয়া হয়)।

★পরিবার★
★বিদেশে পড়ার সময় ফজিলতুন্নেসা সাতক্ষীরা নিবাসী খান বাহাদুর আহসানউল্লাহ্‌র পুত্র প্রথম বাঙালি সলিসিটর ব্যারিসটার জনাব শামসুজ্জোহার সাথে পরিণয়সূত্রে আবদ্ধ হন।

★কর্মজীবনে তাঁর অসমান্য ‍অবদান…..

★ লন্ডন থেকে ফিরে ১৯৩০ সালে তিনি কলকাতায় প্রথমে স্কুল ইন্সপেক্টরের চাকুরিতে যোগদান করেন। ১৯৩০ সালের আগস্টে কলকাতার অ্যালবার্ট হলে অনুষ্ঠিত ‘বঙ্গীয় মুসলিম সমাজ-সেবক-সংঘে’র বার্ষিক অধিবেশনে সভাপতি হিসেবে তাঁর বক্তব্যটি নারী
জাগরণের মাইল ফলক হয়ে আছে। এই অধিবেশনে তিনি বলেন ‘নারী-শিক্ষার প্রয়োজনীয়তা সম্বন্ধে অনেকেই অনেক কথা বলেছেন ও বলেন। নারী সমাজের অর্ধাঙ্গ, সমাজের পূর্ণতালাভ কোনোদিনই নারীকে বাদ দিয়ে সম্ভব হতে পারে না। সেই জন্যেই আজ এ সমাজ এতোটা পঙ্গু হয়ে পড়েছে। তিনি আরো বলেন,
The highest form of society is one in which every man and woman is free to develop his or her individuality and to enrich the society what is more characteristic of himself or herself.

★ কাজেই এ সমাজের অবনতির প্রধান কারণ নারীকে ঘরে বন্দি করে রেখে তার Individuality বিকাশের পথ রুদ্ধ করে রাখা। নারী-শিক্ষা সম্বন্ধে এতোটা কথা আজ বলছি তার কারণ সমাজের গোড়ায় যে-গলদ রয়েছে সেটাকে দূরীভূত করতে না-পারলে সমাজকে কখনই সুন্দর করে গড়ে তুলতে পারা যাবে না।’

★ তিনি ১৯৩৫ সালে বেথুন কলেজে গণিতের অধ্যাপক হিসাবে যোগদান করেন। বেথুন কলেজে চাকুরীরত অবস্থায় দেশবিভাগের পর তিনি ঢাকায় চলে এসে ইডেন কলেজের অধ্যক্ষ হিসেবে যোগদান করেন ১৯৪৮ সালে। বেগম ফজিলাতুন্নেছা ১৯৪৮ সাল থেকে ১৯৫৭ সাল পর্যন্ত ঢাকা ইডেন কলেজের অধ্যক্ষা ছিলেন। বেগম ফজিলাতুন্নেছার অক্লান্ত পরিশ্রম ও চেষ্টায় বিজ্ঞান ও বাণিজ্যিক বিভাগসহ ইডেন কলেজ ডিগ্রি পর্যায়ে উন্নীত হয়।১৯৫২ সালে ইডেন কলেজের মেয়েরা রাষ্ট্রভাষা আন্দোলনে কলেজের অভ্যন্তর থেকে মিছিল বের করার প্রস্ত্তুতি নিলে উর্দুভাষী এক দারোগা হোস্টেলে ঢুকে মেয়েদের ভয়ভীতি দেখাতে শুরু করার এক পর্যায়ে
খবর পেয়ে বেগম ফজিলাতুন্নেছা কলেজে এসে তার বিনানুমতিতে কলেজ প্রাঙ্গণে ঢোকার জন্য দারোগাকে ভৎসনা করে হোস্টেল থেকে বের করে দেন নিজের দৃঢ়তা ও প্রশাসনিক ক্ষমতার বলে।

নারীশিক্ষা ও নারীমুক্তি সম্পর্কে সওগাতসহ শিখা পত্রিকায় মুসলিম নারীর মুক্তির জন্য যে লেখা প্রকাশ করেছিলেন তা-

মুসলিম নারী শিক্ষার প্রয়োজনীয়তা
নারী জীবনে আধুনিক শিক্ষার আস্বাদ
মুসলিম নারীর মুক্তি ইত্যাদি প্রবন্ধ

এছাড়াও অনেক পত্রিকায় তাঁর বিভিন্ন প্রবন্ধ, গল্প প্রকাশিত হয়।

★ মৃত্যু……….

★এই বিদুষী নারী ১৯৭৭ সালে ২১ অক্টোবর ঢাকায় মৃত্যুবরণ করেন। এই মহীয়সী নারীর স্মৃতি রক্ষার্থে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে ১৯৮৭ সালে ফজিলাতুন্নেছার নামে মেয়েদের হল নির্মাণ করা হয়।

হে মহান স্রষ্টা হে দয়াময় বাংলা মায়ের গৌরবময় অধ্যায়ের আলোকিত বাতিঘর মহিয়সী নারী ফজিলাতুন্নেছা জোহা কে জান্নাতুল ফেরদৌস দান করুন, আমিন।

———— বীর মুক্তিযোদ্ধা

আলহাজ্ব মোঃ জয়নাল আবেদীন খান
সাবেক এম,পি-৭৩ মেহেরপুর-১

সাবেক সভাপতি জেলা আওয়ামীলীগ,
মেহেরপুর।

 235 total views,  1 views today

মন্তব্য করুন

আপনার লেখা প্রকাশ করুন

লেখা গুলো ই-মেইলে পেতে সাবস্ক্রাইব করুন

এই বিষয়টি আপনার যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করুন

মন্তব্য বন্ধ আছে।

এই বিভাগের আরো লেখা
© All rights reserved © 2019 www.atikurbd.com
Customized BY NewsTheme